Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Breaking News
Home / দেশ / অখিলেশ-মায়াবতী আসন সমঝোতা, বিপক্ষে বাপ মুলায়ম?
Samajwadi Party National President Akhilesh Yadav greeting to Bahujan Samaj Party Supreemo Mayawati on the occassion of her 63rd Birthday in Lucknow on Tuesday.Express photo by Vishal Srivastav 15.01.2019

অখিলেশ-মায়াবতী আসন সমঝোতা, বিপক্ষে বাপ মুলায়ম?

অবশেষে আসন সমঝোতা সম্পন্ন সমাজবাদী ও বহুজন সমাজবাদী পার্টির মধ্যে। বেশ কিছুদিন ধরেই রাজনৈতিক মহলে জল্পনা চলছিল অখিলেশ-মায়াবতীর মধ্যে কে কাকে কতগুলো আসন ছেড়ে দেয় সেটা নিয়ে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশের মোট আশিটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে মায়াবতীর দল লড়বে ৩৮টি আসনে। অন্যদিকে, অখিলেশের সমাজবাদী পার্টির জন্য ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৩৭টি আসন। তিনটি আসন রাখা হয়েছে রাষ্ট্রীয় লোকদলের জন্য। বাকি দু’টি আসন কোথায় গেল? এখানেই ঘটেছে মজার ব্যাপারটা। কংগ্রেসকে নিজেদের জোটের মধ্যে না নিলেও আসন সমঝোতার সময় কংগ্রেসের গড় আমেঠি ও রায়বেরিলির আসন দু’টি ছেড়ে দিয়েছে সপা-বসপা জোট। এটা সৌজন্য দেখিয়ে ছেড়ে রাখা হল, নাকি একটি জটিল রাজনৈতিক সমীকরণ–সেটা ভবিষ্যত বলবে।


সারা দেশজুড়ে বিজেপি-বিরোধী যে হাওয়া বইছে তাতে মূলত নেতূত্ব দিচ্ছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উনিশের মঞ্চে ব্রিগেডে ইইনাইটেড ইন্ডিয়া, সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে মেট্রো চ্যানেলে ধরনায় বসা এবং রামলীলা ময়দানে কেজরিওয়াল, চন্দ্রবাবু সহ সবাইকে নিয়ে মোদির বিরুদ্ধে সম্মিলিত জেহাদ ঘোষণা, সবেতেই মমতা প্রধান মুখ। তবে এসবের মধ্যে অন্য সমীকরণ আনছেন সপার প্রতিষ্ঠাতা অখিলেশের পিতা মুলায়ম সিং যাদব। সংসদে কিছুদিন পূর্বেই একদা ‘মোল্লা মুলায়ম’ বলে খ্যাত যাদব নেতা বলে বসেন, আমি পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদিকেই চাই। এতে ঝড় উঠেছিল অন্দরমহলে। তাহলে সপা কি অন্য চাল দিচ্ছে? কিন্তু বসপার সঙ্গে এই সমঝোতার পর আবার বেফাঁস মন্তব্য করেছেন মুলায়ম। তাঁর মতে, মায়াবতীর সঙ্গে জোট করে নাকি দলটাকে শেষ করে দিচ্ছে দলের লোকরাই। ইঙ্গিত যে ছেলের প্রতি তা স্পষ্ট। কিন্তু বাপে-ছেলের এই লড়াই নিয়ে কী বলতে চাইছে রাজনৈতিক মহল? বিজেপির দিকে ঝুঁকছেন মুলায়ম। আবার ছেলে অখিলেশ আসন ছেড়ে রাখছেন কংগ্রেসের জন্য। মমতার সভাতেও উপস্থিত থাকছেন। সমীকরণ জটিল।
রায়বেরিলি থেকে টানা তিনবার জিতেছেন সনিয়া গান্ধি। অন্যদিকে আমেঠি রাহুলের গড়। সেটাও ছেড়ে রেখেছে এই দুই দল। তাহলে কি সুযোগ বুঝে কোপ মারবেন অখিলেশ-মায়াবতী? আপাতত সেটাই মনে হচ্ছে। আর এর ফলে রাজনৈতিক বিরোধীরা অনেকটাই মজবুত হলেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Check Also

ইসলাম-আতঙ্ক ছড়ানোর ষড়যন্ত্র রুখতে হবে: রুহানি

পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, কিছু চিহ্নিত পশ্চিমা দেশের পক্ষ থেকে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

WhatsApp us