জেলা

পশ্চিম মেদিনীপুরে ছুটল অত্যাধুনিক ফ্লাইং স্কোয়ার্ড, নিরাপত্তা সুনিশ্চিত আরও

মেদিনীপুরঃ- ক্যামেরা, জিপিএস ট্র্যাকার, মাইক লাগিয়ে ফ্লাইং স্কোয়াডকে আরও শক্তিশালী করল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। জলপাইরঙের গাড়ি দেখলে সহজেই বোঝা যাবে, নির্বাচন কমিশনের কাজ চালানো হচ্ছে তার মাধ্যমে।গাড়ির ভেতরে বসানো ক্যামেরার মাধ্যমে যেমন গোটা এলাকার ছবি রেকর্ড হবে, তেমনই জিপিএসের মাধ্যমে ফ্লাইং স্কোয়াডের অবস্থান বোঝা যাবে। পাশাপাশি মাইক ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় প্রচার সারা হবে। কোনওরকম প্ররোচনায় পা না দিয়ে নির্ভয়ে ভোট দেওয়ার আবেদন জানানো হবে। এমন ৪৭ টি ফ্লাইং স্কোয়াড টিম বা গাড়ির আনুষ্ঠানিক ‘উদ্বোধন’ করলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা শাসক পি মোহন গান্ধী।

নির্বাচন ঘোষণার পর থেকেই জেলায় কাজ শুরু করেছে ফ্লাইং স্কোয়াড টিমের৷ অন্যান্য জেলার সঙ্গে এই জেলাতেও সেই টিমে শুধু ক্যামেরাম্যান ও মাইকিং ছিল ৷ এবার তাতে জিপিএস ট্‌রাক্যার,প্রতি গাড়িতে ২৪ ঘন্টা অটোমেটিক ভিডিও ফুটেজ রেকর্ডের ব্যাবস্থা,মাইকিং থাকছে ৷নির্বাচন কমিশনের গাড়ি বোঝানোর জন্য প্রতিটি গাড়িতে জলপাই রঙের স্টিকার দিয়ে টোলফ্রি নম্বর ও নিয়মাবলী লাগানো হয়েছে। জেলায় ৪৭টি ফ্লাইং স্কোয়াড টিম কাজ করছে। প্রতিটি বিধানসভা এলাকায় তিনটি করে ফ্লাইং স্কোয়াড টিমের গাড়ি থাকবে। দাঁতন ও শালবনীতে একটি করে টিম অতিরিক্ত থাকবে। জেলাশাসক তথা জেলা নির্বাচনী আধিকারিক পি মোহন গান্ধী বলেন, এফএসটি(ফ্লাইং স্কোয়ার্ড টিম) আগে থেকেই কাজ করছে। আমরা কিছু গাড়িতে ক্যামেরা, জিপিএস, অডিও সিস্টেম বসিয়ে কিছুটা আধুনিক করেছি গাড়িটিকে। এতে কাজের ক্ষেত্রে অনেকটাই সুবিধা হবে। কোনও ঘটনার ক্ষেত্রে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হবে।

জেলা শাসকের অফিসে কন্ট্রোলরুমে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে সংলগ্ন এলাকার ফ্লাইং স্কোয়ার্ড গাড়িকে জিপিএস-এ চিহ্নিত করে দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হতে নির্দেশ দেওয়া হবে ৷ এলাকায় গিয়ে অভিযোগের গুরুত্ব, ঠিক কী ঘটনা ঘটেছে, সেসব খতিয়ে দেখে এ ব্যাপারে তারাই রিপোর্ট দেয়। ফ্লাইং স্কোয়াডের গাড়িতে একজন ম্যাজিস্ট্রেট, একজন পুলিস অফিসার এবং দু’জন পুলিস কনস্টেবেল থাকেন। ট্র্যাকিং মেশিন বসানেরা ফলে এবার গাড়ির অবস্থান অফিসে বসেই জানতে পারবেন জেলা প্রশাসনের কর্তারা। কাজ করতে গিয়ে যদি কোনও অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়, তখন ক্যামেরায় সব কিছুই রেকর্ড হবে। সে ব্যাপারে পরবর্তীকালে ছবি দেখে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে। পাশাপাশি মাইক বা সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে এলাকায় এলাকায় নির্ভয়ে ভোট দেওয়ার প্রচার চালানো হবে ৷এছাড়াও জেলায় স্ট্যাটিক সার্ভাইলেন্স টিমও থাকছে। আগামীদিনে ওই টিমও কাজ শুরু করবে। জেলা শাসক জানান- ভোটাররা ছাড়াও ভোট কর্মীদেরও নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে বিভিন্ন নতুন ব্যাবস্থা নেওয়া হয়েছে ৷

Show More

Related Articles

error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker
WhatsApp us