দেশ

মুসলিম ভোটারদের প্রচ্ছন্ন হুমকি মেনকার

মহাজোটের আতঙ্ক বিজেপি নেতাদের মধ্যে কীভাবে ছড়িয়ে পড়ছে তার প্রমাণ পাওয়া গেল মানেকা গান্ধির মন্তব্যে। মানেকা গান্ধি এক জনসভায় বলছেন– আমি ভোটে জিতছি। মানুষের ভালোবাসা ও মদদে আমার জয় হবেই। তবে যদি মুসলিম ভোটারদের মদদ ছাড়াই জয়ী হই– তাহলে বিষয়টা তিক্ত হবে। যদি মুসলিমরা আমার কাছে কোনও কাজ নেওয়ার জন্য আসে– তাহলে আমাকে তখন ভেবে দেখতে হবে। ভেবে দেখুন তখন কী অবস্থা হবে। এখন তো সবকিছু দেওয়া নেওয়ার পালা চলছে– ‘গিভ অ্যান্ড টেক’।
মানেকা গান্ধি বিজেপির প্রধান সারির নেত্রী ও কেন্দ্রীয়মন্ত্রী। সুলতানপুরে তাঁর এই ধরনের মন্তব্যের ভিডিয়ো রেকর্ডিং সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে মানেকা গান্ধি বলছেন– এটা অত্যন্ত জরুরি ও নিশ্চিত। আমি ভোটে জিতছিই। তবে দিল ‘খাট্টা হো জায়েগা’ যদি আমার দিক থেকে মুখ ফেরানো মুসলিমরা আমার কাছে কোনও উপকার নিতে বা চাকরি চাইতে আসবে। আমি চাই না বিভাজন। কিন্তু এখন দেখছি– ভালোবাসার সঙ্গে দুঃখ ও যন্ত্রণা রয়েছে। এবার আপনাদের ঠিক করতে হবে আপনারা কী করবেন? মুসলিমদের প্রতি উদ্দেশ্য করে তিনি বলছেন– আপনাদের ছাড়াই আমার বিজয় হবেই। আমরা শুধু দিয়েই যাব আর ভোটে হারতে থাকব এটা চলতে পারে না। মানেকা গান্ধির এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়ে কংগ্রেস বলেছে মানেকার বক্তব্য লজ্জাজনক। কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা দাবি করেছেন– অবিলম্বে মানেকার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হোক। নির্বাচন কমিশন তাঁর নোমিনেশন বাতিল করুক এই ধরনের ভয়ংকর আপত্তিকর মন্তব্যের জন্য। কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় বা টু্যইট করেছেন এখন বোঝা যাচ্ছে দেশে কেন বেকার বাড়ছে। বিজেপি ‘গিভ অ্যান্ড টেক’ নীতি নিয়েছে। বিজেপির কাছে ‘নৌকরি এক সওদা হ্যায়’ অগে মদদ কর– তাহলে চাকরি মিলতে পারে।
সুলতানপুরে এক মুসলিমদের সমাবেশে বিজেপি নেত্রী ও পিলভিতের সাংসদ মানেকা গান্ধির এই মন্তব্য রাজনৈতিক মহলে বিতর্ক তৈরি হয়। ভোটের আগে তাঁর এই ধরনের মন্তব্যে মুসলিম ভোটারদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। মানেকা গান্ধি তাঁর পুত্র বরুণ গান্ধিকে পিলভিত আসনটি ছেড়ে দিয়ে সুলতানপুরে এসেছেন। কিন্তু ২০১৯ সালের ভোটে উত্তরপ্রদেশে সপা-বসপা-আরএলডির মহাজোটের কাছে বিজেপির গতবারের জয়ী আসন হাতছাড়া হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। দলিত-মুসলিম-যাদব-জাঠ ভোটাররা সর্বত্রই কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন বিজেপির বিরুদ্ধে। প্রায় সব সমীক্ষায় দেখানো হচ্ছিল বিজেপি গতবারের জেতা ৭১টি আসনের মধ্যে অর্ধেক হারাতে পারে জোটের কাছে। কিন্তু প্রথম দফার ভোটের গতিপ্রকৃতি দেখে আরএসএস-এর অভ্যন্তরীণ রিপোর্টেও ভরাডুবির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। একদিকে উজ্জীবিত ও উল্লসিত মহাজোট আর অপরদিকে ক্ষিপ্ত ও আতঙ্কিত বিজেপি নেতৃত্ব। মানেকা গান্ধির মন্তব্য ছড়িয়ে পড়ায় আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ছে বিজেপি।

Show More

Related Articles

error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker
WhatsApp us