রাজ্য

মোদিকে দিল্লি ছাড়া করার ডাক দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

এম এ হাকিম, বনগাঁ


প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দিল্লি ছাড়া করার ডাক দিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি আজ শনিবার উত্তর ২৪ পরগণা জেলার গোপালনগর হাইস্কুল মাঠে দলীয় জনসভায় ভাষণ দেওয়ার সময় ওই আহ্বান জানান।

অভিষেক বলেন, ‘ভারত মাতা কী জয়’ বলে বাংলাকে অশান্ত করা যাবে না। ‘ভারত মাতা কী জয়, দাঙ্গার রাজনীতি আর নয়, ভারত মাতা কী জয়, মানুষ ঠাকালে মোদী এমনই হয়। ভারত মাতা কী জয়, ২৩ মে’র পরে ভারত হবে তৃণমূলময়। আমাদের নেত্রী ৪২ টি লোকসভা আসনের সবকটিতেই জয়ী হওয়ার ডাক দিয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগণা জেলায় পাঁচটি আসনের সবকটিতেই তিন লাখেরও বেশি ভোটের ব্যবধানে দলীয় প্রার্থীরা জিতবে। কিন্তু জিতলেই হবে না, প্রত্যেক নির্বাচনী বুথে এদেরকে সর্বশান্ত করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘যারা ভেবেছিল, বাংলায় অশান্তি করে, বাংলার মানুষকে ভুল বোঝাবো, সেই নরেন্দ্র মোদিকে কড়ায়গণ্ডায় জবাব দিতে হবে। পাঁচ বছর ধরে রোজ আপনাদেরকে মেরেছে। পাঁচ বছর ধরে কখনো কাটারির কোপ, কখনো তলোয়ারের কোপ, কখনো দা’য়ের কোপ, কখনো ছুরির কোপ। কখনো জিএসটি(পণ্য ও পরিসেবা কর) নিয়ে কেটেছে, কখনো নোট বাতিলের মধ্য দিয়ে কেটেছে, কখনো ধর্ম নিয়ে কেটেছে, কখনো মিথ্যা বলে কেটেছে, কখনো রামনবমীর নামে কেটেছে। সেজন্য ২৩ তারিখ (২৩ মে নির্বাচনের ফল ঘোষণা) এককোপে নরেন্দ্র মোদিকে দিল্লি ছাড়া করবেন। এই প্রতিশ্রুতি নিয়ে আপনাদেরকে ফিরে যেতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘মমতা ঠাকুর বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের পার্থী হলেও মনে রাখবেন আপনারা ভোটটা মমতা বন্দোপাধ্যায়কে দিচ্ছেন। বাংলার সম্মানের পক্ষে দিচ্ছেন। বাংলার ঐতিহ্য রক্ষা করার পক্ষে দিচ্ছেন।’

অভিষেক এদিন বনগাঁ কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মমতা ঠাকুরকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে তাঁকে বিপুল ভোটে জয়ী করার আহ্বান জানানোর পাশপাশি বনগাঁর উন্নয়ন ও সার্বিক প্রগতির দায়িত্ব তিনি নিজ কাঁধে তুলে নিচ্ছেন বলে মন্তব্য করেন। যে উন্নয়ন হয়েছে তাছাড়া আরও তিনগুণ বেশি উন্নয়ন করা হবে বলেও তিনি জানান।

অভিষেক এদিন ‘দু’হাজার উনিশ, বিজেপি ফিনিশ’, ‘বিজেপি হটাও, দেশ বাঁচাও’, ‘সিপিএম হটাও দেশ বাঁচাও’ স্লোগান দিলে উপস্থিত কর্মী-সমর্থকরা তাতে সমস্বরে গলা মিলিয়ে সোচ্চার হন।

অভিষেক এদিন পাকিস্তানের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সখ্যতার প্রসঙ্গ টেনে সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি জয়ী হলে নওয়াজ শরীফকে শপথ অনুষ্ঠানে ডেকে নিয়ে এসেছিলেন। এরপরে তাঁর বাড়িতে গিয়ে বিরিয়ানি খেয়েছেন! এখন দেখছি তাঁদের সরকার পাল্টেছে, ইমরান খান জিতে নয়া প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন, তিনিও বলছেন, আমরা মোদি চাই!’

অভিষেক বলেন, ‘চোর-ছ্যাঁচড়-চিটিংবাজ-দু’নম্বরি ‘গাদ্দার’রা বলছে নরেন্দ্র মোদিকে চাই। আর ভারতের খেঁটে খাওয়া মানুষ বলছে আমার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চাই।’

তিনি বলেন, ‘আমি হিন্দু ধর্মে বিশ্বাস করলে স্বামী বিবেকানন্দের হিন্দু ধর্মে বিশ্বাস করি। যোগি আদিত্যনাথ ও অমিত শাহের হিন্দু ধর্মে বিশ্বাস করি না।’ ওঁরা বারে বারে টাকার বিনিময়ে বাংলাকে কিনতে চেয়েছে, বাংলাকে অপমানিত করতে চেয়েছে বলেও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন।

এদিনের সমাবেশে রাজ্যের মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, রত্না ঘোষ কর, তাপস রায়, বিধানসভার মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ, বনগাঁ উত্তরের বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস, বনগাঁ দক্ষিণের বিধায়ক সুরজিৎ বিশ্বাস, জেলা পরিষদের সভাধিপতি বীণা মণ্ডল, সাবেক সভাধিপতি রেহেনা খাতুন, দেগঙ্গার বিধায়ক রহিমা মণ্ডল, বনগাঁর সাবেক বিধায়ক ও আরটিএ বোর্ডের সদস্য গোপাল শেঠ-সহ বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত সাতটি বিধানসভা এলাকার তৃণমূলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Show More

Related Articles

error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker
WhatsApp us