দেশপ্রথম পাতা

উত্তপ্ত জম্মু, চারিদিকে স্লোগান ,বিক্ষোভ,ভাঙচুর,হামলা, জারি কারফিউও

পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক:

জঙ্গি হামলার পর জম্মুতে রাস্তায় নেমেছে স্থানীয়রা। গতকাল থেকেই চলছে রাস্তা অবরোধ। টায়ার জ্বালিয়ে, গাড়ি পুড়িয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে সবাই। ভারতমাতা কি জয়ের পাশাপাশি স্লোগান উঠছে পাকিস্তান হায় হায়। ইতিমধ্যে এই বিক্ষোভে প্রায় ১২ জন আহত হয়েছে। এর জেরে জম্মুর একাধিক জায়াগায় কারফিউ জারি করা হয়েছে। পরিস্থিতির সামাল দিতে মোতায়েন করা হয়েছে নিরাপত্তাবাহিনী।
এই বিষয়ে জম্মুর ডেপুটি কমিশনার রমেশ কুমার জানান, পরিস্থিতির সামাল দিতে কারফিউ জারি করা হয়েছে। কিন্তু কারফিউ জারির কথা ঘোষণার পরেও উত্তেজিত জনতা পিছু হটেনি। জম্মু শহর পুরোপুরি স্তব্ধ। যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। সমস্ত দোকানও বন্ধ।

গতকাল রাত থেকেই পথে নেমেছে উত্তেজিত জনতা। কোথাও গাড়ি ভাঙচুর, কোথাও ইট পাথর ছোড়া শুরু করেছে। জম্মুর জেউল চক, পুরানি মুন্ডি, রেহাড়ি, শক্তিনগর, পাক্কা ডাঙায় বিক্ষোভ চরম আকার নিয়েছে। তাদের স্লোগান ছিল, “আর সার্জিকাল স্ট্রাইক নয়। এবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার আদেশ দিন প্রধানমন্ত্রী। ভারতমাতা কি জয়। ইন্ডিয়ান আর্মি জিন্দাবাদ। হামারা শহিদ অমর রহে।”

এ ঘটনায় মুসলমানরা জড়িত নয় বলে জানিয়েছেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ । খবর অনলাইন গ্রেটার কাশ্মীর পত্রিকার।

শুক্রবার জম্মু-কাশ্মীরে মুসলমানদের ওপর সহিংসতা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে টুইট করে জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ এ মন্তব্য করে। এ ঘটনায় তিনি গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।পরপর পোস্ট দেয়া কয়েকটি টুইটে তিনি বলেন, ৪৯ সিআরপিএফ সদস্যদের হত্যায় কোনো কাশ্মীরি বা মুসলমান জড়িত নয়।তিনি ভারত সরকারের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জাতিগত (কাশ্মীরি) বা ধর্ম (মুসলমানদের) কারণে নির্দোষ মানুষের ওপর আক্রমণ করা হয়েছে। গতকালের ঘটনায় তাদের ছাড় দিয়ে সম্মান করার কোনো উপায় নেই।

তিনি বলেন, আমি রাজনৈতিক নেতা ও সুশীল সমাজরে কাছে আশা করছি ঠাণ্ডা মাথায় ঘটনা মোকাবেলা করার জন্য।

তিনি বলেন, জম্মুর কাশ্মীরি বা মুসলমানরা গতকালকে সিএরপিএফ সদস্যদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা করেনি। এই হিংস্রতাকে সুবিধাজনক হাতিয়ার হিসেবে কিছুলোক দোষ চাপিয়ে দিচ্ছে।

গতকালের সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং শ্রীনগর পৌঁছে আওন্তীপাড়ার হামলার ঘটনায় এলাকাটিতে বিশেষ নজর দিতে বলেছেন। বিশেষ করে কলেজ ও প্রতিষ্ঠান যেখানে কাশ্মীরি বসবাস করছে বা অধ্যয়ন করছে।

তিনি এ তদন্তের ঘটনাকে ‘সফট টার্গেট’ উল্লেখ করেছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় দেশটির বিশেষায়িত বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) ৪৯ জন জওয়ান নিহত হয়েছেন। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

বৃহস্পতিবার সিআরপিএফ সদস্যদের বহন করা দুটি গাড়িতে জঙ্গিদের বোমা বিস্ফোরণে জওয়ানরা নিহত হয়। জওয়ানদের একটি বাসের মাধ্যমে অন্যটির বিস্ফোরণ ঘটে। ওই বাসটিতে ৫৪ ব্যাটালিয়ন সিআরপিএফ জওয়ানরা ছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আইইডির বিস্ফোরণের পর শরীরের বিভিন্ন অংশ ছিন্নভিন্ন হয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায়।

সিআরপিএফের অপারেশন আইজি জুলফিকার হাসান বলেন, জম্মু থেকে শ্রীনগর যাওয়ার পথে ৭০টি যানবহন ছিল। এর মধ্যে একটিতে হামলা করা হয়। সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় কাশ্মীর পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

সূত্র: গ্রেটার কাশ্মীর ও হিন্দুস্তান টাইমস


Show More

Related Articles

মন্তব্য করুন

error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker
WhatsApp us