মুসলিমদের ধর্মীয় রীতি পালনে মসজিদ অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ অংশ।তাই অযোধ্যা মামলার উপ মামলায় মসজিদ নিয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালত যে রায় দিয়েছে,তা ফের পুনর্বিবেচনা করা হোক।এই আবেদন নিয়ে বৃহস্পতিবার দেশের সর্বোচ্চ আদালতে মামলা করলেন আইনজীবি আবু সোহেল।পুর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথির গিমাগেড়িয়ার বাসিন্দা আবু সোহেলের মামলার আবেদন গ্রহণ করেছে (মামলা নং ৩৮৬০১/২০১৮) দেশের সর্বোচ্চ আদালত।
১৯৯৪ সালের এক মামলায় সুপ্রিম কোর্টের এক ডিভিশন বেঞ্চ রায় দিয়েছিল মসজিদে নামায পড়তে হবে এমন কথা ইসলাম ধর্মের বলা নেই। তাই নামায যে কোন যায়গায় পড়া
যায়।এই রায়ে অসন্তুষ্ট হয়ে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড রায় পুর্নবিবেচনার জন্যে ফের দেশের উচ্চ আদালতে আবেদন জানায়।সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের সদ্য প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন একটি বেঞ্চ সেই রায়কেই পুনর্বহাল রেখে ছিল।যদিও সেই বেঞ্চের অন্যতম বিচারপতি আবদুল নাজির এই রায়ের সাথে নিজের অমতের কথা বলেছিলেন।

তিনি মনে করেন, এই বিষয়টি বৃহত্তর বেঞ্চে যাওয়া উচিৎ ছিল।তারপরেই সুপ্রিম কোর্টের আইনিজীবি আবু সোহেলের করা মামলা বাতিল না করে গ্রহণ করা তাৎপর্যপুর্ণ বলে মনে করছে মুসলিম সম্প্রদায়ের একাংশ।আইনজীবি আবু সোহেল জানিয়েছেন, দেশের সংবিধানের ২৫ নং ধারায় উল্লেখ আছে এই দেশের নাগরিক যে কোনো ধর্মাবলম্বী ভারতীয়কে তাঁর ধর্মাচারণে কোনওভাবে বাধা দেওয়া যাবে না।আর মসজিদ ও নামায মুসলিমদের ধর্মাচারণে অন্যতম অংশ।তারপরেও কি ভাবে নামাযের  জন্যে মসজিদ অপরিহার্য হয় না?তাই আদালত যাতে রায়ের পুর্নবিবেচনা করেন তার জন্যে আবেদন করেছি।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of