মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিমগণ বর্তমানে যে কোনো সময়ের তুলনায় আমেরিকান সমাজের সর্বক্ষেত্রে অবদান রেখে চলেছেন। তবে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিস্থিতি এই মুক্ত স্বাধীনতার দেশ থেকে আমেরিকান সমাজে মুসলিমদের রাখা এসব অবদানসমূহকে একেবারে মুছে দিতে চায়।

হাসান মিনহাজ

সাম্প্রতিক কয়েক বছরে আমার দেখেছি যে, কৌতুক অভিনেতা হাসান মিনহাজ ব্যাপক খ্যাতি লাভ করেছেন, ইবতিহাজ মুহাম্মদ অলিম্পিক গেমসে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য সম্মান বয়ে এনেছেন এবং ইলহান ওমার নামের প্রথম সোমালিয়ান বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক যিনি দেশটির আইন প্রণেতা হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন।

ইলহান ওমার

উপরোক্ত নামগুলো হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সমাজে অবদান রাখা হাজারো মুসলিমদের মধ্যে খুবই নগণ্য। আর তাদের অবদানসমূহকে মুছে দেয়া অতোটা সহজ কোনো বিষয় নয়।

ইবতিহাজ মুহাম্মদ

ফাতিমা হুসেইন নামে সোমালিয়া বংশোদ্ভূত নারী যিনি ইলহান ওমারের প্রদেশ মিনিশোটায় বসবাস করেন। বিভিন্ন ক্রীড়া অনুষ্ঠানে মুসলিম নারীদের জন্য একটি শালীন পোশাক কতটা দরকারি তিনি সবার সামনে তা তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন।

মিনিশোটা বিশ্ববিদ্যালয়য়ের সহযোগিতায় তিনি এবং তার দল ২০১৫ সালে মেয়েদের বাস্কেট বলে শালীন পোশাক পরিধান করে অংশগ্রহণের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে একটি ফ্যাশন শো’র আয়োজন করেছিলেন।

ফাতিমা হুসেইন বলেন, ‘আমরা ব্যবসা সম্পর্কে চিন্তা করছি না বরং আমরা আমাদের কমিউনিটিতে বিদ্যমান সমস্যাগুলোর সমাধান করতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছি।’

২০১৬ সালে মিনিশোটা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাজার ব্যবস্থাপনা বিভাগের ছাত্রী জেমি গ্লোভারকে নিয়ে ফাতিমা হুসেইন ‘আসিয়া’ নামে শালীন পোশাক প্রস্তুতকারী একটি কোম্পানি গড়ে তুলেন।

তাদের উদ্যোগে ব্যাপক সফলতা অর্জন করে এবং চলতি বছরের মার্চ মাসে তাদের প্রতিষ্ঠান থেকে স্পোর্ট’স হিজাব বাজারে আনা হয়।

‘আসিয়া’ নামে শালীন পোশাক উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তাদের মতে, ত্রুটিহীন একটি পোশাক তৈরি করা অতোটা সহজ কাজ নয়। ‘আসিয়া’র দলের ডিজাইনারগণ একটি আরাম দায়ক ক্রীড়া হিজাব তৈরি করার জন্য অন্তত ৮০ ধরনের কাপড় নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা চালিয়েছেন।

জেমি গ্লোভার বলেন, ‘আমরা ভারসাম্য রক্ষার জন্য ব্যাপক প্রচেষ্টা চালিয়েছি এবং আমি আমাদের দলের মুসলিম মেয়েদের এ জন্য ধন্যবাদ জানাতে চাই কারণ ক্রীড়া হিজাবের ধারণাটি আমরা তাদের কাছ থেকে পেয়েছি।’

‘আসিয়া’ এর পূর্বে বেশ কয়েকটি স্পোর্ট’স হিজাব প্রস্তুত করে পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পরে ফাতিমা হুসেইন বলেন, ‘এগুলো পরিধান করা অতোটা আরাম দায়ক ছিল না।’

‘এর পরে আমরা একেবারে নতুন ধারণার নতুন কাঁচামালের ব্যবহার করে পুনরায় এসব পোশাকের ডিজাইন করি।’

বর্তমানে ‘আসিয়া’র নিজস্ব ওয়েবসাইটে www.asiyasport.com এ বিভিন্ন ধরণের স্পোর্ট’স হিজাব পাওয়া যাচ্ছে। কোম্পানিটি অতি শীঘ্রই রঙবেরঙয়ের এর সাঁতার কাটার মত উপযুক্ত হিজাব বাজারে নিয়ে আসবে।

জেমি গ্লোভার বলেন, ‘যদি মুসলিম মেয়েরা একই সাথে হিজাব পরিধান এবং বিভিন্ন ক্রীড়ায় অংশ নিতে চায়, তাহলে তাদেরকে তা করতে দিন, আমরা নারীদেরকে পিছিয়ে পড়া দেখতে চাই না, আমরা নারীদের ক্ষমতায়ন চাই।’

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of