মার্কিন অভিনেত্রী ডাকোটা ফ্যানিং সম্প্রতি ‘Sweetness In The Belly’ নামক একটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন, যেখানে তাকে আফ্রিকার একজন শেতাঙ্গ মুসলিম নারীর ভূমিকায় দেখা যাবে।

আয়ারল্যান্ডের ডাবলিন শহরে চলচ্চিত্রটির চিত্রগ্রহণের সময় তাকে হিজাব এবং পুরোপুরি মুসলিম পোশাক পরিহিত অবস্থায় দেখা যায়।

‘The Ocean’s Eight’ নামক চলচ্চিত্রে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করা ২৪ বছরের এই অভিনেত্রীকে ১৯৭০ সালের লন্ডনের একটি দৃশ্যায়নে দেখা যাবে এবং এ বিষয়টি ফুটিয়ে তোলার জন্য তাকে কলাকুশলীদের সাথে কঠিন পরিশ্রম করতে দেখা যায়।

‘Sweetness in the Belly’ নামক চলচ্চিত্রটিতে তাকে সবুজ হিজাব এবং গাঢ় রংয়ের জিলবাব (আরব দেশের মুসলিম নারীদের বোরকা সদৃশ একধরনের পোশাক) পরিহিত অবস্থায় দেখা যাবে।

চিত্রগ্রহণ শুরু হওয়ার পূর্বে এই অভিনেত্রীর পরনে শরৎকালীন দৃশ্য-সংবলিত পোশাক এবং তার পায়ে ধূসর বর্ণের জুতো দেখা যায়।

বিখ্যাত উপন্যাসিক কামিলা গিব এর লিখিত উপন্যাসের উপর ভিত্তি করে নির্মিত এই চলচ্চিত্রে ডাকোটা ফ্যানিং কে উপন্যাসটির মূল চরিত্র লিলি এর শৈশব কাল থেকে তার ২০ বছর বয়স পর্যন্ত অভিনয় করতে দেখা যাবে।

উপন্যাসের কাহিনী অনুযায়ী লিলি তার শৈশব কাল কাটিয়েছিল তার আইরিশ বংশোদ্ভূত পিতামাতার সাথে ইউরোপের বিভিন্ন প্রান্তে ভ্রমণ করার মাধ্যমে। এর পরে লিলির বয়স যখন ৮ বছরে পৌছায় তখন তারা মরক্কোতে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে শুরু করে।

একদিন লিলির পিতামাতা একটি মর্মান্তিক দূর্ঘটনায় খুন হন এবং লিলি কে মোহাম্মদ ব্রুস নামের ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত একজন ইংরেজ উদ্ধার করে যিনি তাকে একটি সুফি আস্তানায় লালন পালন করেন এবং সেখানে লিলি মহান আবদালের নিকট থেকে আধ্যাত্মিক দিক নির্দেশনার শিক্ষা পান।

লিলির বয়স যখন ১৬ তখন তিনি আফ্রিকা থেকে ইথিওপিয়া অবধি আধ্যাত্মিক ভ্রমণের সিদ্ধান্ত নেন এবং সেখানে তিনি শিশুদের পবিত্র কোরআন শিক্ষা দেন।

এমনকি যদিও তিনি সেখানে বহু বছর কাটিয়েছিলেন, সেখানকার স্থানীয় অধিবাসী আজিজের সাথে দেখা হওয়ার আগ পর্যন্ত তার নিজেকে আগন্তুক বলে মনে হত। আর শেষ পর্যন্ত তারা একে অপরের প্রেমে পড়েন।

উপন্যাসের গল্পের এক পর্যায়ে লিলিকে আমরা যুক্তরাজ্যে নির্বাসিত অবস্থায় দেখতে পাই যেখানে তিনি ইথিওপিয়ান বংশোদ্ভূত আমিনা নামে তার একজন বন্ধুর সাথে বসবাস করেন।

যুক্তরাজ্যে লিলি একজন অভিবাসী কেন্দ্রে সেবিকা হিসেবে কর্মরত থাকা অবস্থায় যদিও আজিজের কোনো খোঁজ খবর পাচ্ছিলেন না তথাপি তিনি সবসময় আজিজের প্রতি মন থেকে অনুগত বোধ করতেন এবং আশা করতেন যে, একদিন না একদিন তিনি আজিজের সন্ধান পাবেন।

এমনটি এমন এক সময় হচ্ছিল যখন লিলি যুক্তরাজ্যের মত একটি স্থানে নিজের সাংস্কৃতিক পরিচয় নিয়ে সংগ্রাম করে চলছিলেন এবং তিনি আসলে কে এবং কোথায় তার অবস্থান এ বিষয় সমূহ বুঝে উঠার জন্য প্রচেষ্টারত ছিলেন।

বিভিন্ন প্রতিবেদনের সূত্র অনুযায়ী, ‘Sweetness In The Belly’ নামক চলচ্চিত্রটির চিত্রায়নের প্রাথমিক ধাপ আয়ারল্যান্ডে ধারণ করা হবে এবং পরবর্তীতে কিছু অংশ ইথিওপিয়া তে ধারণ করা হবে।

ডাকোটা ফ্যানিং ছাড়াও চলচ্চিত্রটিতে ‘The Big Bang Theory’ এর অভিনেতা কুনাল নায়ার এবং ‘Aquaman’ চলচ্চিত্রের অভিনেতা ইয়াহিয়া আবদুল-মাতিন(২) অভিনয় করবেন।

চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করছেন জেরেসেনাই মেহারি। চলচ্চিত্রটির মুক্তির দিন ক্ষণের ব্যাপারে এখনো কিছু জানা যায় নি।

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of