আবার অ্যাপেলোতে রুগি মৃতু্য– কর্তাদের তলব স্বাস্থ্য ভবনে

0
157


ফারুক আলম
সঞ্জয় রায়ের মৃতের রেশ ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতে– আবারও কাঠগড়ায় অ্যাপেলো হসপিটাল। শনিবার ভোর রাতে রbা ঘোষ (৬০) নামে এক রুগির মৃতু্য অ্যাপেলোতে। এবারও পরিবারের লোকজন মৃতু্যর কারণ হিসাবে খাঁড়া করেছেন– ডাক্তারের চিকিৎসার গাফিলতি। মৃতের পরিবার অ্যাপেলোর বিরুদ্ধে চিকিৎসার অভিযোগ তুলে– শনিবার বাইপাসের ধারে অবস্থিত ওই হাসপাতালের সামনে বিক্ষোভে শামিল হলেন মৃতের পরিবারের লোকজন। অ্যাপেলোর বিরুদ্ধে একের পর এক চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ জমা পড়ায়– ক্ষুব্ধ নবান্ন।
শনিবার বর্ধমানের বাসিন্দা  ঘোষের চিকিৎসার গাফিলতি এবং মৃতু্যর খবর চাউর হতে কঠোর পদক্ষেপ নিল রাজ্য সরকার। এ দিন দুপুর দেড়টা নাগাদ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে তলব করা হয় সল্টলেক স্বাস্থ্য ভবনে। সেই মতো অ্যাপেলোর তিন কর্তা স্বাস্থ্য ভবনে হাজিরা দেন। সূত্রের খবর– স্বাস্থ্য অধিকারিকেরা হাসপাতাল কর্তাদের কাছে জানতে চায়– মুখ্যমন্ত্রী এত সতর্ক করার পরে কেন এত অভিযোগ তাঁদের বিরুদ্ধে? কেন ভূরি ভূরি বিল? কেন তথ্য লোপাটের অভিযোগ উঠছে? সেই সমস্ত প্রশ্নে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিতভাবে সেই কৈফিয়ত চেয়েছেন রাজ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকেরা। প্রায় ৩ ঘণ্টা জেরার পর হাসপাতাল কর্তারা বেরিয়ে জানান– ‘রোগীর কীভাবে মৃতু্য হয়েছে আমাদের কাছে তা লিখিতভাবে জানতে চেয়েছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকেরা।’ লিখিতভাবে কারণ জানানো হবে বলে সাংবাদিকদের জানান অ্যাপেলো হাসপাতালের প্রতিনিধিরা।
চিকিৎসার গাফিলতিতে র ঘোষের মৃতু্য হয়েছে এই অভিযোগ মৃতের বাড়ির লোকেরা এ দিন বিক্ষোভে ফেটে পড়েন অ্যাপেলোতে। মৃতের পরিবারের সদস্য কৌশিক ঘোষ জানিয়েছে– ১১ ফেব্র&য়ারি বর্ধমানের বাসিন্দা বছর ষাটের রbা ঘোষকে শ্বাসকষ্টের কারণে অ্যাপেলোর ডাক্তার অমরনাথ ঘোষের অধীনে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকেরা জানান– হ*দ্যন্ত্রের ভালবজনিত সমস্যা আছে। রোগীর ভালব পরিবর্তন করতে হবে। সে জন্য রোগীকে অপারেশন করতে হবে বলে আমাদেরû জানানো হয়। সেই মতো ১৩ ফেব্র&য়ারি অপারেশন করা হয়। অপারেশনের পরে রbাদেবী কিছুটা সুস্থ হলে– পরে আবারও বুকে যন্ত্রণা এবং শ্বাসকষ্ট বাড়তে থাকে। এরপরে চিকিৎসকেরা জানান রোগীকে বাঁচাতে গেল আইসিইউতে রাখতে হবে। সেই মতে রোগীকে তারা আইসিইউতে পাঠান। পরিবারে অভিযোগ মোট ১৪ দিন আইসিইউতে রেখে ৪ লক্ষ্য টাকা বিল করে ‘পেমেন্ট’ করা হয়। এরপরে চিকিৎসকেরা জানায়– রোগীকে পেসমেকার বসাতে হবে। চিকিৎসকের কথায় সাড়া দিয়ে ২৩ ফেব্র&য়ারি ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা নিয়ে রbাদেবীর বুকে পেসমেকার বসানো হয়। এরপরে শুক্রবারû চিকিৎসকেরা জানান– র দেবী সুস্থ আছেন। সেইমতো শনিবার হসপিটাল থেকে রোগীকে ছাড়া হবে জানিয়েছিল চিকিৎসকেরা। এর মধ্যে শনিবার ভোর রাতে পরিবারকে ফোন করে র দেবীর মৃতু্যর খবর জানানো হয়। এই ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান– ২৪ তারিখে রোগীর শরীরের অবস্থা স্থিতিশীল ছিল। কিন্তুù দুভার্গ্যজনিত কারণে শনিবার ভোর ৩ টে ৪৫ মিনিট নাগাদ হঠাৎ হদ্রোগে আক্রান্তù হয়ে মৃতু্য হয় রbাদেবীর। রোগীর মৃতু্যর ঘটনায় পরিবারের লোকেরা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে দরবার করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। প্রয়োজন হলে কনজিউমার ফোরামে অভিযোগ করবেন বলে পরিবারের লোকেরা জানান শনিবার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here