সীমান্তের জিরো পয়েন্টে মিলেমিশে একাকার হলেন দু’বাংলার মানুষ

0
164

এম এ হাকিম– বনগাঁ
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ২১ ফেব্র&য়ারি পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের হাজার হাজার মানুষ পেট্রাপোল-বেনাপোল সীমান্তের নোম্যান্সল্যান্ডে মিলেমিশে একাকার হলেন। সীমান্তের অস্থায়ী রক্তদান শিবির থেকে বিনিময় হল দু’দেশের মানুষের রক্ত।
‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একুশে মঞ্চ’ থেকে ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে পশ্চিমবঙ্গের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন– ‘ওপার বাংলার অসুস্থ মানুষদের জন্য এপার বাংলার মানুষের দেওয়া রক্ত যাবে– একইভাবে ওপার বাংলার মানুষদের রক্ত এপার বাংলার অসুস্থ মানুষদের জন্য আসবে– এর চেয়ে বড় কাজ আর হয় না।’ মঞ্চের একদিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি– অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়য়ের ছবি দেখিয়ে এদেরকে ‘দুই মা’ বলে অভিহিত করেন মন্ত্রী। মঞ্চে ভাষা শহিদদের অর্থাৎ রফিক– শফিউর– সালাম– বরকত– জব্বারদের ছবি থাকলে ভালো হত বলে মন্তব্য করেন তিনি। বাংলাদেশের বেনাপোল পুরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন তার হাতে একটি আমন্ত্রণপত্র তুলে দেন– যাতে ওই ৫ ভাষা শহিদের ছবি রয়েছে। ওই আমন্ত্রণপত্রের ছবি দর্শকদের উদ্দেশ্যে তুলে ধরে নোম্যান্সল্যান্ডে স্থায়ীভাবে ভাষা শহিদদের ছবি রাখা হবে বলে জানান তিনি।
এ দিন উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর পেট্রাপোল এবং বাংলাদেশের বেনাপোল সীমান্তে কয়েকহাজার মানুষ বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে ভাষা দিবসের শহিদদের স্মরণে সমবেত হন। এই উপলক্ষ্যে নোম্যান্সল্যান্ড বা সীমান্তের জিরো পয়েন্টে বিশেষভাবে তৈরি অস্থায়ী শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান পশ্চিমবঙ্গের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং বাংলাদেশের বেনাপোল পুরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটনের নেতৃত্বে দুই বাংলার প্রতিনিধিরা।
শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে এপার বাংলা থেকে উপস্থিত ছিলেন– বনগাঁ পুরসভার চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য– বনগাঁর সংসদ সদস্য মমতা ঠাকুর– বনগাঁ (উত্তর) বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস– বনগাঁ দক্ষিণের বিধায়ক সুরজিৎ কুমার বিশ্বাস– বাগদার বিধায়ক দুলাল বর– দেগঙ্গার বিধায়ক রহিমা মণ্ডল প্রমুখ। ওপার বাংলা থেকে বেনাপোল পুরসভার মেয়রের পাশাপাশি বাংলাদেশ আওয়ামি লিগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে দু’বাংলার কবি– শিল্পী– সাহিত্যিক– নাট্যকার– আবৃত্তিকারকরা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here