টরেন্টোয় মসজিদের বাইরে মুসলিম বিরোধী জমায়েত– পালটা প্রতিবাদও

0
132

টরেন্টো– ১৮ ফেব্র&য়ারিঃ কানাডায় গত কয়েক মাসে লক্ষণীয়ভাবে বেড়েছে মুসলিম বিদ্বেষী ঘটনা। কুইবেক শহরে একটি মসজিদে হামলা সম্প্রতি প্রাণ হারিয়েছেন ৬ জন। বেশ কয়েকটি রেডিয়ো স্টেশনের বিরুদ্ধে মুসলিম বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রডেউ এবং তার প্রশাসন পরিস্থিতি সামলাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন। কিন্তু তারা এটাও অনুধাবন করতে পারছেন যে– সমাজের অভ্যন্তরেই ঘাপটি মেরেছিল এই বিদ্বেষ। পাশের দেশ আমেরিকায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের উত্থান সেই বাস্তবতাকেই বেআব্র& করে দিয়েছে। গত শুক্রবার টরেন্টো শহরের অদূরে একটি মসজিদের বাইরে মুসলিম বিরোধী জমায়েতে শামিল হতে দেখা যায় বেশকিছু মানুষকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় সে খবর ছড়িয়ে পড়তেই এর পালটা প্রতিবাদও দেখা জনা পঞ্চাশেক মানুষ। পালটা প্রতিবাদের আগেই সেই ইসলাম বিরোধী জমায়েত অবশ্য শেষ হয়ে যায়। কিন্তু হঠাৎ ওই মসজিদের সামনে এই ধরনের জমায়েত কেন?
জানা গিয়েছে– ওই সমাবেশে জড়ো হওয়া লোকজন আদালতে এরিক ব্রাজাউয়ের পাশে দাঁড়াতে চান। এরিকের বিরুদ্ধে মুসলিম বিদ্বেষী প্রচার এমনকী একজনকে হেনস্থার অভিযোগ রয়েছে। শীঘ্রই আদালতে ওই মামলায় শুনানি হবে। মসজিদের সামনের জমায়েতকারীদের বক্তব্য– এরিক আসলে নির্দোষ। তাকে সব মামলা থেকে নিÜৃñতি দেওয়া হোক। তার হয়ে স্লোগান দিতে দিতে কোর্ট থেকে ওই মসজিদ পর্যন্ত মিছিল করে একটি দল। তাদের হাতে ছিল মুসলিম বিদ্বেষী নানা প্ল্যাকার্ড।
মোশন এম-১০৩ নামে একটি চ্যানেলের বিরুদ্ধেও স্লোগান দিতে দেখা গিয়েছে তাদের। কানাডা সরকার কীভাবে এই পরিকল্পিত বর্ণবিদ্বেষী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে তা নিয়ে একটি নিউজ বুলেটিন সম্প্রচার করেছিল চ্যানেলটি। ওই মসজিদের কার্যনির্বাহী কমিটির প্রাক্তন সদস্য আবদুল বাসিত খান এই প্রসঙ্গে বলেন– কিছু মানুষ বিভেদ তৈরি করতে চাইছে। তবে তাদের সংখ্যা খুবই কম। তিনি আরও জানান– ওই মসজিদের সামনে এই ধরনের জমায়েত কিংবা পালটা মিছিলের নজির নেই গত ১৫ বছরের ইতিহাসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here