ভুল হয়েছে– মেনে নিল অস্ট্রেলীয় ক্যাথলিক চার্চ

0
165

ক্যানবেরা– ১৭ ফেব্র&য়ারি ­ অভিযোগ জমা পড়ছিল ১৯৮০ সাল থেকে। কিছু অভিযোগ সময়ের স্টেËাতে ফিকে হয়ে গেছে– সিংহভাগ ধামাচাপা পড়েছে আর খুব কম অভিযোগই আদালত অবধি গড়িয়েছে। তবে দীর্ঘ চার দশক ধরে অস্ট্রেলিয়ার সামাজিক স্তরে চূড়ান্ত বিতর্কিত যে বিষয়টি গোটা দেশের সমাজ ব্যবস্থাকে কুরে কুরে খাচ্ছিল তা এবার দিনদুপুরে মেনে নেবার পথেই হাঁটা দিল সে দেশের ক্যাথলিক চার্চ। সমকামিতা খ্রিস্ট ধর্মসমাজে নিন্দনীয় ও চূড়ান্ত বর্জনীয় হলেও তা যে অস্ট্রেলিয়ার ক্যাথলিক চার্চের অন্দরমহলকে ফোঁপড়া করে দিয়েছে তা এবার প্রকাশ হয়েই গেল। ১৯৮০ সাল থেকে ২০১৫ সালের ফেব্র&য়ারি পর্যন্ত দেশের ৯৩টি ক্যাথলিক চার্চের সংগঠন ৪৪৪৫টি যৌন নিগ্রহের অভিযোগ পেয়েছে। যার মধ্যে ১৮৮০টি অভিযোগের ক্ষেত্রে দোষীদের চিহ্নিত করা সক্ষম হয়েছে। চমক আরও আছে। অভিযুক্তদের মধ্যে ৫৯৭ জন খ্রিস্টীয় ব্রাদার– ৫৭২ জন যাজক ও ৫৪৩ জন চার্চের কর্মচারী। সকলেই পুরুষ। অভিযোগকারীদের মধ্যেও প্রায় ৯৫ শতাংশ পুরুষ যারা শৈশব– কৈশোর বা যৌবনে যৌন নিগ্রহের শিকার হয়েছেন। আর এখানেই বে-ফাঁস হয়েছে রক্ষণশীল ক্যাথলিক চার্চের অন্দরমহলের ভিতরে সমকামিতা ও যৌনতা কীভাবে শিকড় ছড়িয়েছে। এবার হয়ত বিতর্ক ধামাচাপা দিতেই ক্যাথলিক চার্চের সংগঠন ২১৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে– যা অভিযোগকারীরা পাবেন। একে তো দোষ ভুল যে হয়েছে তা মেনে নেওয়ায় বেআব্র& হয়েছে চার্চের অন্দরমহল– তার ওপর বিতর্ক বেঁধেছে ক্ষতিপূরণের পরিমাণ নিয়ে। জানা যাচ্ছে সবাই ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন না– যাঁরা পাচ্ছেন তারা আবার সমান পরিমাণে ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন না। গুড ফেথ ফাউন্ডেশনের সিইও হেলেন লাস্ট রয়টার্সকে জানিয়েছেন তাদের সংস্থাই ৪৬০ জন নিগৃহীতার হয়ে সওয়াল করেছে– অথচ সবাই যেমন ক্ষতিপূরণ পাননি– যাঁরা পেয়েছেন তাঁরাও সমানভাবে তা পাননি। এটা দেশের সমানাধিকারের ওপর চরম আঘাত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here