আমেরিকায় ‘শরণার্থীহীন দিবস’ পালন– ধর্মঘট বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের

0
139

ওয়াশিংটন– ১৭ ফেব্র&য়ারিঃ দেশের সরকারকে চোখে আঙুল দিয়ে তারা দেখিয়ে দিতে চান– সমাজ ব্যবস্থা থেকে ব্যবসা– শিক্ষা থেকে শিল্পকলা–শরণার্থী হিসেবে আগত মানুষদের অবদান কতটা। আর সে জন্যই বৃহস্পতিবার একদিনের ধর্মঘটে শামিল হলেন বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের মালিক থেকে শুরু করে কর্মী– কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী থেকে চাকরিজীবীরা। ওয়াশিংটন– নিউ ইয়র্ক– সানফ্রান্সিসকো সহ বেশ কয়েকটি শহরের বহু রেস্টুরেন্ট বন্ধ ছিল। কোনও সংগঠনের ডাকে অবশ্য এই ধর্মঘট হয়নি। আহ্বান জানানো হয়েছিল ইন্টারনেটে। তাতেই সাড়া দেন বহু মানুষ। ধর্মঘটের সপক্ষে সবাইকে বলা হয়েছিল– বেআইনি অভিবাসীরা তো বটেই যাদের কাগজপত্র রয়েছে তেমন কোনও শরণার্থী যাতে ওই দিন কাজে যোগ না দেন। ছেলেমেয়েদের স্কুলে না পাঠান– বন্ধ রাখেন কেনাকাটা।
নিউ ইমিগ্রান্ট কমিউনিটিএমপাওয়ারমেন্ট-এর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ম্যানুয়েল কাস্ত্রো এই প্রসঙ্গে বলেন– এ যেন আর এক আরব বসন্ত। আমাদের সদস্যরা এসে জিজ্ঞাসা করেছে– কী কী পরিকল্পনা আছে। শিকাগোয় খ্যাতনামা শেফ রিক বেলেস তার চারটি রেস্তরাঁ বন্ধ রেখেছেন। তার কর্মীদের প্রতি সম্মান জানাতেই বৃহস্পতিবার রেস্টুরেন্ট খোলেননি তিনি। নর্থ ক্যারোলিনায় ২৫০টি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। মিশিগানে বন্ধ ছিল ১০০টি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এবং দোকানপাট।
ইরাক থেকে শরণার্থী হিসেবে এসেছিলেন অ্যান্ডি শালাল। একটি রেস্তরঁûা চালান তিনি। ওই দিন তিনিও তার দোকান বন্ধ রাখেন। এই প্রসঙ্গে সংবাদ সংস্থাকে বললেন– আমি এরকম এক সময়ে দাঁড়িয়ে চুপ করে বসে থাকতে পারি না। আমার কর্মীরা এই আহ্বানে সাড়া না দিয়ে এসে কাজ করবে তা আমি চাইনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here