শশী জেলেই– পালানিস্বামী না ওপিএসই? এখনও ধন্ধ

0
165

চেন্নাই ও বেঙ্গালুরু– ১৫ ফেব্র&য়ারিঃ বুধবার সন্ধ্যায় বেঙ্গালুরু জেলে আত্মসমর্পণ করলেন এআইএডিএমকে নেত্রী শশীকলা। নিরাপত্তার কথা ভেবে এ দিন বেঙ্গালুরু জেলেই আদালত বসানো হয়। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশমতো শশীকলা– এলাবরসি আত্মসমর্পণ করেন। এর আগে সুপ্রিম কোর্টে শশীকলার পক্ষ থেকে নতুন করে আবেদন করে আত্মসমর্পণের দিন পিছনোর অনুরোধ করা হয়। বিচারপতি পিনাকীচন্দ্র ঘোষ স্পষ্ট জানিয়ে দেন– যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তাই মানতে হবে শশীকে। বেঙ্গালুরু কোর্টেও শশীর পক্ষ থেকে এসি– বাড়ির খাবার ইত্যাদি বাড়তি সুবিধার আবেদন করা হয়। বিচারক সব নাকচ করে দিয়ে জানান– স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা হবে। কিন্তু বাইরের খাবার খাওয়া যাবে না– এসিও দেওয়া হবে না। বেঙ্গালুরু জেলে দু’জন মহিলা বন্দির সঙ্গে থাকতে দেওয়া হয়েছে শশীকলাকে। দু’দিন আগে যার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার কথা ছিল ভাগ্যের ফেরে তিনি এখন বেঙ্গালুরু জেলের ১০৭১১ নম্বর বন্দিমাত্র। এ দিন বেঙ্গালুরুতে শশীকলার আত্মসমর্পণ উপলক্ষ্যে বিরাট নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়েছিল। শশীকলার স্বামী নটরাজন এবং লোকসভার ডেপুটি স্পিকার থাম্বিদুরাই উপস্থিত ছিলেন। এর আগে শশীকলা চেন্নাই থেকে বেঙ্গালুরু রওনা হওয়ার আগে দলের ডেপুটি জেনারেল সেক্রেটারির পদে বসান ভাইপো দিনকরণকে। এ ছাড়া তাঁর আত্মীয় বেঙ্কটেসকেও দলের উচ্চ পদে বসিয়ে দেন। এরপর তিনি মেরিনা বিচে জয়ললিতার স্মৃতিস্তম্ভের কাছে গিয়ে বেদিতে সজোরে তিনবার তালি মারেন। তিনবারই বিড়বিড় করে কী যেন বলেন। ঘনিষ্ঠরা বলেছেন– তিনি ফের ঘুরে দাঁড়ানোর শপথ নিয়েছেন। এরপর তিনি এমজিআরের মর্মর মূর্তির কাছে শ্রদ্ধা নিবেদন করে অনুগামীদের ভয় না পেতে উপদেশ দেন।
এ দিকে এআইএডিএমকের এক বিধায়ক পুলিশের কাছে এ দিন এফআইআর করেন যে– তাঁকে শশীকলা জোর করে রিসর্টে বন্দি করে রেখেছিলেন। তিনি পালানিস্বামীরও নাম করেন। এরপরই ওপিএস কেয়ারটেকার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নির্দেশ দিয়ে প্রচুর পুলিশকে ওই গোল্ডেন বে রিসর্টে পাঠান। পুলিশ সেখানে তল্লাশি চালিয়ে সব বিধায়কদের বিকেল তিনটার মধ্যে রিসর্ট ছাড়তে বলে। কিন্তু পুলিশ বলা সত্ত্বেও তাঁরা রিসর্ট ছাড়েননি। তবে রাজ্যপাল বিদ্যাসাগর রাও এই খবর লেখার সময় পর্যন্ত কাউকে ডাকেননি। কিন্তু সংখ্যার বিচারে পালানিস্বামীকেই সরকার গড়তে ডাকা উচিত। রাজ্যপাল তবু কেন কালক্ষেপ করছেন তা স্পষ্ট নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here