মান্নানকে দেখতে হাসপাতালে মুখ্যমন্ত্রী

0
169

কলম প্রতিবেদক­ রাজনৈতিক সৌজন্যের নজির গড়ে শনিবার অসুস্থ বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নানকে দেখে এলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রবীণ নেতার দ্রুত আরোগ্য কামনা করে বললেন– ‘তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠুন। বিধানসভায় ফিরে আসুন।’ মুখ্যমন্ত্রীকে পালটা ধন্যবাদ জানান বিরোধী দলনেতাও। উল্লেখ্য– গত বুধবার বিধানসভায় সম্পত্তি ভাঙচুর বিলকে ঘিরে গোলমালের সময়ে টানা-হ্যাঁচড়ায় অসুস্থ হয়ে পড়া বিরোধী দলনেতাকে প্রথমে ভর্তি করা হয় পতাকা গোষ্ঠীর পরিচালিত লেনিন সরণির জি ডি হাসপাতালে। সেখানেই প্রাথমিক চিকিৎসা করেন বিশিষ্ট চিকিৎসক সুকুমার
মুখোপাধ্যায়। পরে বৃহস্পতিবার জি ডি হাসপাতালের চিকিৎসকরাই জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্রোপচার করে অস্থায়ী পেসমেকার বসিয়ে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেন। কিছুটা সুস্থ হওয়ার পরে মান্নানকে বাইপাস সংলগ্ন এক বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।
এ দিন কালীঘাটের বাড়ি থেকে নবান্নে যাওয়ার পথে আচমকাই বাইপাস সংলগ্ন হাসপাতালে হাজির হন মুখ্যমন্ত্রী। সঙ্গে ছিলেন মন্ত্রী অর*প বিশ্বাসও। হাসপাতালে েপৗঁছেই সোজা চলে যান আবদুল মান্নানের কেবিনে। মিনিট পাঁচেক ছিলেন সেখানে। অসুস্থ বিরোধী দলনেতার কাছ থেকে শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন। কথা বলেন মান্নানের চিকিৎসকদের সঙ্গেও।
চিকিৎসকরা মুখ্যমন্ত্রীকে জানান– ‘চিন্তার কোনও কারণ নেই। বিরোধী দলনেতার শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। ২-৪ দিনের মধ্যেই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে।’
রাজ্য রাজনীতিতে গত কয়েক বছর ধরেই তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমোর কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত আবদুল মান্নান। বিধানসভার বিরোধী
দলনেতা হওয়ার পরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণের ধার আরও তীক্ষø করেছেন। কিন্তু বিরোধী দলনেতার অসুস্থতার সময়ে সেসব মনে রাখেননি মুখ্যমন্ত্রী। বরং মান্নানের অসুস্থতার খবর জানার সঙ্গে সঙ্গেই েখাঁজখবর নিতে পাঠিয়েছিলেন দলের তিন
চিকিৎসক-বিধায়ক শশী পাঁজা– সুদর্শন ঘোষদস্তিদার ও মানস ভুঁইঞাকে। বৃহস্পতিবার পাঠান পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও উপ মুখ্যসচেতক তাপস রায়কে। হাসপাতালে গিয়ে বিরোধী দলনেতাকে দেখে এসেছেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here