‘টয়লেট নেই– তো বিয়ে নয়’ একজোট হরিয়ানার ১২০০ ইমাম

0
153

বিশেষ প্রতিবেদনঃ আপনার বাড়িতে টয়লেট নেই– তাহলে বিয়ে করতে পারবেন না। হরিয়ানায় খাপ পঞ্চায়েতের আদলে এই ফরমান জারি করলেন ১২০০ জন ইমাম। ১১০টি গ্রামের ইমামরা একত্রিত হয়েছিলেন এই উদ্দেশ্যে। সেই সঙ্গে বিবাহ মজলিশে গানবাজনা ও মদ্যপানের বিরুদ্ধেও তাঁরা একজোট হয়েছেন। পাত্রপক্ষ ও পাত্রীপক্ষ উভয়কেই স্থানীয় পঞ্চায়েত থেকে সার্টিফিকেট নিয়ে আসতে হবে। সার্টিফিকেটে পঞ্চায়েতকে লিখে দিতে হবে যে তাদের বাড়িতে টয়লেট রয়েছে যদি সার্টিফিকেট নিয়ে আসতে না পারেন তাহলে কোনও ইমাম ও কাজী সেই বিয়ে পড়ানোর কাজ করবেন না। হরিয়ানায় ইমামদের এই ধরনের উদ্যোগের পিছনে রয়েছে। জমিয়তে উলামা-এ-হিন্দ সংগঠন। ইমামরা জানান– খোলা মাঠে মলত্যাগের অনুমতি ইসলামে নেই। ইসলাম ধর্ম পরিচ্ছন্নতার দিকে বেশি নজর দিয়েছে। হরিয়ানার নূহ জেলায় ৩১৭টি গ্রামে মাত্র ১৭০টি টয়লেট রয়েছে। জেলা আধিকারিক অফিস থেকে জানানো হয়েছে এই জেলায় বাড়িতে টয়লেটের সংখ্যা খুবই কম। তবে হরিয়ানা সরকার বিপিএল পরিবারের জন্য টয়লেট বানাতে আর্থিক সাহায্য দিচ্ছে। জমিয়তের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে নূহ জেলার ১১০টি গ্রামের ইমামরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ধীরে ধীরে জেলার সমস্ত গ্রামে এই সিদ্ধান্ত ছড়িয়ে দেওয়া হবে। জমিয়তের পরিকল্পনা রয়েছে হরিয়ানার পর পঞ্জাব– হিমাচলপ্রদেশ ও রাজস্থানের মুসলিম অধ্যুষিত গ্রামগুলিতে এই ফরমান লাগু করতে। জমিয়তের ধারণা অন্যান্য গ্রামের ইমামরাও এই ‘টয়লেট নেই– বিয়ে নয়’ সিদ্ধান্তের সঙ্গে সহমত হবেন।
উত্তরভারতের বিভিন্ন গ্রামেও বাড়িতে নিজস্ব টয়লেটের সুবিধা নেই। তাই হরিয়ানার এই সিদ্ধান্ত মুসলিম বিবাহের ক্ষেত্রে অবশ্য পালনীয় করা যায় কি না তা নিয়ে জমিয়ত চেষ্টা চালাচ্ছে। তাঁদের মতে– দেশব্যাপী স্বচ্ছতা ও স্বাস্থ্য নিয়ে ইমামরাও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে সেই ধারণা ছড়িয়ে দেওয়ার দরকার রয়েছে। ইমামরা আরও চাইছেন অন্যান্য ধর্মের ধর্মীয় নেতারাও তাঁদের সঙ্গে সহযোগিতা করুক। গ্রাম থেকে মদ ও নেশা দূর করার জন্য সকলের কাছে আবেদন জানাবেন তাঁরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here