সানিয়ার তৃণমূলি অ্যাকাডেমির পথ চলা শুরু

0
156

কলম প্রতিবেদন­ আর পাঁচটা মেয়ের মতোই মাকে তিনি ভীষণ ভালোবাসেন। সেটাই স্বাভাবিক। ছোটবেলা থেকেই মায়ের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা পেয়েছেন– মায়ের আদর্শেই নিজেকে আদর্শায়িত করেছেন। টেনিসে আসার পর থেকেই মায়ের কাছ থেকেই এই শিক্ষা পেয়েছিলেন যে নিজের টেনিস কেরিয়ারের মধ্যগগনে কিংবা শেষের দিকে যখন তুমি একটা আইকন তৈরি হয়ে যাবে– তখন তোমার কাজ হবে তোমার মতো করেই ছোটদের বড় করা। সেই আদর্শে আদর্শায়িত হয়েই ভারতীয় টেনিস কু্যইন সানিয়া মির্জা এবার নিজে উদ্যোগী হয়ে উদ্বোধন করলেন সানিয়া মির্জা টেনিস অ্যাকাডেমি (এসএমটিএ)। এটা তাঁর মায়েরই একটা প্রোজেক্ট। ২০১৩ সাল থেকে সানিয়া মির্জার এই টেনিস অ্যাকাডেমি তৈরির কাজ শুরু হওয়ার পর শেষপর্যন্ত এবার সেই অ্যাকাডেমির দরজা খুলে দেওয়া হল। তবে এখানে টেনিসের মূলত পাঠ দেওয়া হবে তিন থেকে আট বছর বয়সি টেনিস প্লেয়ারদের।
অ্যাকাডেমির উদ্বোধনে এসে সানিয়া বলেন– ‘একজন টেনিস প্লেয়ার হিসেবে আমি একটা সময় অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি। তাই জানি যে একজন প্লেয়ার শিশু বয়স থেকে যখন টেনিসের আঙিনায় আসে তাকে কোন দিকগুলো সম্বন্ধে সচেতন থাকতে হয়। তাদের জানতে হবে কীভাবে নিজেকে আরও উন্নত করা যায়। কতটা অনুশীলনের প্রয়োজন। আমাদের লক্ষ্য ছিল এই অ্যাকাডেমিতে আসা ছেলেমেয়েদের একেবারে পরিবারের মতো করে হাতে ধরে টেনিস শেখানো।’
সঙ্গে সানিয়ার সংযোজন– ‘এটা আসলে আমার মা ও মায়ের এক বন্ধুর ভাবনা। আর আমরা এটাকে সমর্থন করেছিলাম। আসলে একটা ছেলে বা মেয়ে যখন ৮ কিংবা ৯ বছরের হয়ে যাবে তখন তার পক্ষে টেনিসের প্রতিটা পদক্ষেপ ঠিক ঠিক পালন করা মুশকিল হয়ে যায়। টেনিসে আসতে গেলে শুরুটা করতে হয় তিন কিংবা চার বছর বয়সে। যাঁরা প্রফেশনাল ফিল্ডে এসেছেন– খোঁজ নিয়ে দেখুন তাঁরা ৪-৫ বছর বয়সেই টেনিসের খুঁটিনাটি শিখে গিয়েছেন। খুব বেশি হলে ছয় বছর বয়সে। আমরা চাই এটা একটা পূর্ণ সময়ের অ্যাকাডেমি হিসেবে গড়ে উঠুক। আমরা এখানে খুব নমনীয় বল দিয়ে টেনিস খেলাতে চাইছি– বাচ্চাদের কাছে সেটা অনেক বেশি গ্রহণযোগ্য হবে। বলগুলোও হবে কিছুটা রঙিন। যাতে তারা আগ্রহ পায়। আসলে তিন কিংবা চার বছর বয়সে একটা বাচ্চা বুঝতেও পারে না কোনটা ফোরহ্যান্ড– কোনটা ব্যাকহ্যান্ড। তাই হলুদ বলে খেললে ওরা আগ্রহ পাবে না। কিন্তু রঙিন বলে খেললে বাচ্চারা অনেক বেশি প্রফেশনাল হয়ে উঠতে পারে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here