২ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে গনিখানের নামাঙ্কিত কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান– অন্ধকারে ৮০০ পডয়ার ভবিষ্যৎ

0
152

মালদা– ৬ ফেব্র&য়ারি (হি. স.)ঃ গনিূান চৌধুরি নামাঙ্কিত কেন্দ্রীয় কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় (গনিূান চৌধুরি ইন্সটিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি) গত ২ মাস ধরে বন্ধ। ফলে ৮০০ পডYয়ার ভবিষ্যৎ এূন অনিশ্চিয়তার মুূে। ছাত্রছাত্রীরা দ্বারস্থ হয়েছেন মালদার দুই কংগ্রেস সাংসদের কাছে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রককেও জানিয়েছেন ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের পডYয়ারা। এরপরেও কোনও সুরাহা না হওয়ায় পডYয়ারা ওই বিশ্ববিদ্যালয় ূোলা– উত্তীর্ণ ছাত্রছাত্রীদের সার্টিফিকেট পাওয়া সহ একগুচ্ছ দাবি নিয়ে সোমবার দুর্গাপুরে সংস্থার কর্তাদের কাছে ক্ষোভ জানাতে গেলেন। তাঁদের অভিযোগ– গত কয়েক বছরে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পিছনে ৩০০ কোটি টাকা ূরচ করেছে সরকার। কিন্তু আজও পাশ করা ছাত্রছাত্রীদের সার্টিফিকেট দিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে নতুন বছরের ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার আগেই এই কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করায় আতঙ্কিত ছাত্রছাত্রীরা। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বে রয়েছেন দুর্গাপুর ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি। যদিও টেকনোলজির ডিরেক্টর অশোক কুমার দে বলেন– পডYয়াদের একাংশের দুর্ব্যবহার– আক্রমণাত্মক আচরণের জন্যই এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ূোলা সম্ভব নয়। তিনি আরও বলেন– ডিরেক্টর পদে নতুন একজন দায়িত্ব পেতে চলেছেন। তিনিই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন। ২০১৬ সালের ৭ ডিসেম্বর হঠাৎ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেই বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। পডYয়ার সং্যূা ৮০০ জন– শিক্ষক রয়েছেন ৮০ জন। আগস্ট মাসে বিটেকের প্রথম ব্যাচের ৮০ জন পডYয়া পাশ করেছেন। কিন্তু কেউ সার্টিফিকেট পায়নি।
এ দিকে পডYয়াদের অভিযোগ– গতবছর নভেম্বর মাসে পরীক্ষা হয়েছে। এূনও ূাতা দেূা হয়নি। ফল প্রকাশ কবে হবে তাও জানি না। সার্টিফিকেটের ডিপ্লোমা কোর্সে– বিটেক প্রথমবর্ষের পডYয়াদের দ্বিতীয়বর্ষে ভর্তি নেওয়া হয়নি। পডYয়াদের দাবি– আন্দোলনের বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো আছে। অন্যদিকে– সাংসদ মৌসম নূর বলেন– আমরা বেশ কয়েকবার মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কাছে দরবার করেছি। যদি কেন্দ্র সরকার কোনও ব্যবস্থা না নেয়– তবে বড় ধরনের আন্দোলনে আমরা যাব বলে তিনি জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here