ঝুলন– মিতালি– বিসমা মারুফ– সানা মীররা অসামান্য নজির রেখেছেন ­ শচীন মহিলা বিশ্বকাপকে উৎসাহিত করছেন মাস্টার ব্লাস্টার

0
175

কলম প্রতিবেদন ­ আইসিসির মহিলা ক্রিকেট নিয়ে বেশ উৎসাহী কিংবদন্তি শচীন তেন্ডুলকর। তিনি বলছেন মহিলা বিশ্বকাপটা এমনভাবে এবারে সিডিউল করা হয়েছে যে এতে ক্রিকেটের গ্লোবালাইজেশনটা বেশ ভালো হতে পারে। সঙ্গে শচীনের সংযোজন– ‘থাইল্যান্ড এবারের বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে। এটা অন্যদের কাছে বেশ অবাক করা বিষয় হতে পারে– কিন্তু আমার কাছে এটা কোনও আশ্চর্যজনক বিষয় নয়। বরং থাইল্যান্ডের মতো দেশ যে ক্রিকেটে আসছে এটাই তো অনেক। যত নতুন দেশ ক্রিকেটে আসবে তত প্রতিযোগিতাটা বাড়বে।’ পাশাপাশি শচীনের বক্তব্য– ‘চলতি বছরে ইংল্যান্ডে এই মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপ বেশ জনপ্রিয় হতে যাচ্ছে। মহিলাদের ক্রিকেট বিশ্বকাপ মানে এটা নয় যে ক্রিকেটের টানেই তাঁরা এই খেলায় আসছে– বরং অন্যভাবেও এটাকে দেখা যেতে পারে।’ তাঁর মতে– ‘ক্রিকেট এমন একটা গেম যেটার মধ্যে দিয়ে ভালো অ্যাথলিট হওয়া যায়। শচীন বলছেন কেউ যদি নিজেকে ফিট রাখার জন্য ক্রিকেটে আসতে চায় তাহলে সেটা একটা দেশের পক্ষেই সম্মানের। কারণ মহিলাদেরও খেলাধুলার ওপর সমান অধিকার আছে। তারাও ক্রিকেটে একটা আভিজাত্য নিয়ে আসতে পারে। তাছাড়া যে সমস্ত দেশের মহিলারা এখন ক্রিকেট খেলছে তাদের প্রায় বেশিরভাগই ক্রিকেটে অবিসংবাদী। কাজেই তারা যে ক্রিকেটের প্রতি ভালোবাসা দেখাবেন বা এটাকেই প্যাশন করবেন এটা জানা কথা। আমাদেরও তো ঝুলন রয়েছে। মিতালি রাজ রয়েছে। পাকিস্তানের দিকে যদি তাকান তাহলে দেখা যাবে সেখানে বিসমাহ মারুফ– সানা মিররা সারাবিশ্বের কাছে একটা অনন্য নজির রেখেছে। আমার তো মনে হয় মহিলাদের বিশ্বকাপে আলাদা করে কাউকে ফেভারিট তকমা দেওয়া যাবে না। সবাই এখানে ফেভারিট। এটাকে ভালো করে প্রোমোট করা দরকার।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here