বিরাটের সামনে বিরল নজিরের হাতছানি

0
149

বেঙ্গালুরু– ৩১ জানুয়ারি­ প্রথম ম্যাচটা হারের পর নাগপুরে অক্সিজেন পেয়েছে ভারত। আর এবার শেষ তথা গুরুত্বপূর্ণ টি-২০ ম্যাচে নামতে চলেছে ভারত ও ইংল্যন্ড। যে জিতবে সিরিজ তার। দু’টো দলই একটা করে ম্যাচ জিতে আছে। আর গত ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা যেভাবে ডুবিয়েছিলেন বোলাররা সেভাবেই উত্তরণ ঘটিয়েছিলেন ভারতীয় টিমের। বিশেষ করে আশিস নেহরা। বুড়ো হাড়ে ভেলকি কীভাবে দেখাতে হয় সেটা আইপিএলেও তিনি দেখিয়েছিলেন– আবার এই টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সেই ভেলকিটা দেখালেন। সেটা আবারও একবার দেখার অপেক্ষায় আছে বেঙ্গালুরু। মোক্ষম সময়ে মোক্ষম হাতিয়ার আশিস নেহরা। সেই ভরসাতেই বুধবার বেঙ্গলুরুতে ইয়ান মর্গ্যানদের বিরুদ্ধে নামছে টিম ইন্ডিয়া। ম্যাচটা বেঙ্গালুরুতে। এমন একটা পিচ– যে পিচে অতীতে বিরাট বিরাট রান উঠেছে। স্টেডিয়ামটা ছোট। একেবারে টি-২০-র আদর্শ মাঠ। স্লগ ওভারে ব্যাট করায় একটা আলাদা মজা রয়েছে। আর সবথেকে বড় কথা এই মাঠ বিরাট কোহলির খুব ফেভারিট মাঠ। সঙ্গে আবার রয়েছেন কে এল রাহুল। যিনি এই মাঠে খেলেই বড় হয়েছেন। জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছেন। তাঁর নিজস্ব মাঠ। কাজেই একটা বাড়তি অ্যাডভান্টেজ তো রয়েইছে।
একটা চিন্তা ভারতীয় টিমে থাকছে– তা হল গত দু’টো ম্যাচেই দেখা গেছে টপ অর্ডারে বিরাট নামছেন– কিন্তু সেভাবে কিছু করতে পারছেন না। মিডল অর্ডার সেভাবে দানা বাঁধছে না। অনেকেই বিরাটকে পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি নিজে যেন তিন নম্বর অথবা চার নম্বরে নামেন। কারণ টপ অর্ডার যদি ব্যর্থ হয় তিনি অন্তত সামলে দিতে পারেন। কিন্তু টি-২০’তে বিরাট যেহেতু এতকাল ধরে ওপেন করে এসেছেন তাই তিনি এই জায়গাটাকেই শ্রেয় মনে করছেন। বেঙ্গালুরুতে ব্যাটিং অর্ডারে খুব একটা অদল-বদল হবে বলে মনে হচ্ছে না। টি-২০ ফর্ম্যাটে যুবি বা ধোনি দু’জনের কেউই কিন্তু এই সিরিজে ততটা বিধ্বংসী হয়ে উঠতে পারেননি। যদিও আগের দিন ধোনি সুযোগ খুব একটা পাননি। তার ওপর আবার দু’টো আউট নিয়ে ধোনির ওপর দোষারোপ করতে দেখা গিয়েছে অনেককেই। যদিও নেহরাকে বোলিংয়ে আনার ক্ষেত্রে ধোনির ভূমিকা সবচেয়ে বেশি ছিল এই ম্যাচে। তিনিই কার্যত অধিনায়কের ভূমিকা পালন করেছিলেন শেষ ওভার দু’টোতে। বেঙ্গালুরুতেও সেরকম কিছু হতে পারে কি?
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে ভারতের এটাই শেষ সীমিত ওভারের ম্যাচ। কাজেই পুরো সীমিত ওভারে পুরো টিমটাকে দেখে নেওয়ার একটা ব্যাপার রয়েছে। বড় রান করলে সেটা অবশ্যই একটা উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হবে। কারণ এরপর ভারত শুধুই টেসইট সিরিজ খেলবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে পর্যন্ত। কাজেই বিরাটের কাছে এটা একটা পরীক্ষা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে দল কতটা এগোবে তার একটা আগাম প্ল্যানিং এই ম্যাচ হতে পারে। অনেকে আবার এই ম্যাচে ইংল্যান্ডকে কিছুটা নম্বর দিচ্ছেন কারণ ইংল্যান্ড গত দু’টো ম্যাচে ভারতীয় টিমের বিরুদ্ধে ভালো খেলেছে। দ্বিতীয় ম্যাচটা হেরে গেলেও ইংল্যান্ড কিন্তু নাভিশ্বাস তুলেছে ভারতীয় ক্রিকেটের। সেটাকে মাথায় রেখেই এগোতে চাইছেন বিরাট। এই সিরিজটা জিততে পারলে ইংল্যান্ডের কাছে একটা ক্ষতে প্রলেপ দেওয়া হবে। কারণ টেস্ট সিরিজ ও ওয়ান ডে সিরিজে হারের পর এই সিরিজ যদি ইংল্যান্ড জেতে তাহলে অন্তত কিছুটা সম্মান রক্ষা হবে তাদের। উলটোদিকে এই ম্যাচে জিতে সিরিজ জিতলে বিরাট কোহলি একটা অনন্য নজির গড়তে চলেছেন ক্যাপ্টেন হিসেবে। অধিনায়ক হয়েই ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের মতো দলকে তিনটে সিরিজে হারিয়ে নজির গড়বেন বিরাট।
আজ ক্রিকেটে
ভারত বনাম ইংল্যান্ড ৩য় ও শেষ টি-২০
চিন্নাস্বামী স্টেডিয়াম– বেঙ্গালুরু– সন্ধে ৭টা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here