প্রজাতন্ত্র দিবসে নজরদারি চালাবে ড্রোন

0
150

কলম প্রতিবেদক ­আজ বৃহস্পতিবার প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজ যখন চলবে তখন ওপর থেকে নজরদারি চালাবে কলকাতা পুলিশের ড্রোন। একইভাবে রেড রোডের আশপাশ অঞ্চলজুড়ে নিরাপত্তা নিÙিছদ্র করতে থাকবে আরও চার হাজার পুলিশকর্মী। থাকবে এগারোটি ফ্লাইং স্কোয়াড– কুইক রেসপন্স টিম। বুধবারও দু’ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ রেখে মহড়া চলেছে রেড রোডে। এরপরই শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় মধ্যরাত থেকেই মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশবাহিনী। ভাঙর সহ রাজ্যের সাম্প্রতিকতম পরিবর্তিত পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। বুধবার রাতে রেড রোডে সদলবল নিরাপত্তা খতিয়ে দেখলেন কলকাতা পুলিশ উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। পুলিশ জানিয়েছে– প্রতি বছরের মতো এবারও সকাল দশটায় রেড রোডে কুচকাওয়াজ শুরু হবে। তাতে থাকবেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী– মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ সেনা ও পুলিশ প্রশাসনের উচ্চকর্তারা। সেনাবাহিনী– নৌবাহিনী– আধা সামরিক বাহিনী এবং কলকাতা-রাজ্য পুলিশের কর্মীরা কুচকাওয়াজ করবেন। থাকবে এনসিসি ও স্কুলপডYারাও। আজ বৃহস্পতিবার রেড রোডের এই কুচকাওয়াজের জন্য ভোরবেলা থেকেই ওই এলাকায় গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা হবে। যার জেরে একাধিক গাড়ির অভিমুখও বদলে যাবে। ট্রাফিক পুলিশ সূত্রে খবর– কুচকাওয়াজ শেষ হলে তবে সেখানে স্বাভাবিক হবে যান চলাচল। রুটিন মেনে চলবে মেট্রোও। লালবাজার সূত্রে খবর– প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজের জন্য কিছুদিন আগে থেকেই রেড রোডে অতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল। সেদিন থেকেই শহরের প্রতিটি থানাকে রাতে বিশেষ তল্লাশি চালাতে বলা হয়েছিল। জোর দেওয়া হয়েছে গাড়ি তল্লাশির ওপরে। রাস্তার পার্কিং লটে নজর বাড়াতে বলা হয়েছে। শহরে অপরাধ সংগঠিত করতে যাতে কেউ শহরের হোটেল-অতিথিশালাগুলিতে ঘাঁটি গড়তে না পারে। তার দিকে নজর দিতে বলা হয়েছে। স্পেশাল ব্রাঞ্চের পাশাপাশি থানার কর্মী অফিসারেরাও নিজেদের এলাকার হোটেলগুলিতে তল্লাশি চালাচ্ছেন। প্রয়োজনে পরিচয়পত্রও পরীক্ষা করেছে পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে খবর– গত দিন দুয়েক ধরে রাতের দিকে রাস্তায় গার্ড রেল বসিয়ে তল্লাশি চালানো হয়েছে। সন্দেহভাজন মনে হলে– গাড়ি দাঁড় করিয়ে বিশদে তল্লাশি চালিয়েছেন অফিসাররা। শিয়ালদা স্টেশন এলাকাতেও অতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। মেট্রো স্টেশন– বাস টার্মিনাসের উপরেও নজরûদারি বাড়ানো হয়েছে। পুলিশ বলছে– প্রজাতন্ত্র দিবস ছুটির দিনে ভিড় জমতে পারে চিড়িয়াখানা– ভিক্টোরিয়া– গঙ্গার ঘাটেও। লালবাজার সূত্রের খবর– চারহাজার বাহিনীর দায়িত্বে থাকবেন ১৯ জন ডিসি। এ ছাড়া থাকছে ১০টি জায়গায় বালির বস্তা দিয়ে তৈরি বাঙ্কার। ১০ টি ওয়াচ টাওয়ার থেকে পুরো রেড রোডের কুচকাওয়াজের উপর নজর রাখা হবে। রাখা হয়েছে ১৪ টা অ্যাম্বুলেন্স। যেগুলি যেকোনও ধরনের আপদকালীন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে কাজে লাগানো হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here